খবরের বিস্তারিত...


দেশব্যাপী নারী-শিশু নির্যাতন, বলাৎকার ও খুন-রাহাজানি’র প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

অক্টো. 09, 2020 সাংগঠনিক খবর

ক্রমবর্ধমান ধর্ষন,বলাৎকার দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির দূর্বল চিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ––দেশব্যাপী নারী-শিশু নির্যাতন ও শিশু বলাৎকার এর প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে-অধ্যক্ষ ইব্রাহীম আখতারী
ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেদ্রীয় সদস্য অধ্যক্ষ এম ইব্রাহীম আখতারী বলেছেন- নারী-শিশু ধর্ষন, বলাৎকার, খুন-রাহাজানিসহ ইত্যাকার গর্হিত কর্মকান্ড সহনীয় মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। নৈতিকতার স্খলন ও মূল্যবোধের চরম অবক্ষয় ঘটেছে সর্বত্র। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে মানুষ। একটি স্বাধীন রাষ্ট্রে নাগরিক নিরাপত্তাহীনতা কোনভাবেই কাম্য হতে পারে না। নোয়াখালি ও সিলেটে সংঘটিত এহেন ন্যাক্কারজনক ও বিভৎস ঘটনা আইয়ামে জাহেলিয়াতকেও হার মানিয়েছে। সত্যিকার অর্থে ইতোপূর্বেকার এধরনের গর্হিত কর্মকান্ডের সাথে জড়িতদের উপযুক্ত বিচার না হওয়াতে এসবের পূনরাবৃত্তি ঘটছে। প্রশাসন দূর্বৃত্তদের গ্রেপ্তারে সক্ষম হলেও এখনও গডফাদাররা অধরা থাকায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন-ক্রমবর্ধমান ধর্ষন, বলাৎকার দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির দূর্বল চিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ। দেশে দৃশ্যমান রাজনৈতিক কোন টানাপোড়েন না থাকলেও কেন এসব গর্হিত কর্মকাণ্ড অব্যাহত রয়েছে তা কোনভাবেই বোধগম্য নয়। অতএব, সরকারকে সাধারণ জনগণের নাড়ির স্পন্দন বুঝতে হবে। অন্যথায় এযাবতকালের সর্বপ্রকার অর্জনই ম্লান হয়ে যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
ইসলামী ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি বলেছেন- কোন অপরাধী গ্রেপ্তার হলেও আইনের অপপ্রয়োগ ও ত্রুটি-বিচ্যুতির কারণে আইনের ফাঁক গলিয়ে বেরিয়ে আসে। যৎকারনে এদের অধিকতর বেপরোয়া হয়ে উঠার পথ আরও প্রশস্থ হয়। পাশাপাশি অপরাধ নির্মূল কঠিনসাধ্য হয়ে পড়ে। এছাড়াও এক্ষেত্রে প্রশাসনের নির্বিকার ও নির্লিপ্ত ভূমিকাও কোন অংশে কম দায়ী নয়। যেজন্য আইনের শাসন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়া ছাড়াও দেশের বিচার ব্যবস্থার উপর জনগনের ক্রমাগত আস্থার সংকট তৈরি হচ্ছে। তাই ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড আইন কার্যকর করা সময়ের দাবি।
ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম উত্তর জেলার উদ্যোগে অদ্য 09 অক্টোবর- ২০২০ইং, শুক্রবার বাদে জুমা জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ চত্ত্বরে নোয়াখালীতে গৃহবধুকে নির্যাতন, সিলেট এম সি কলেজে আগন্তুক মহিলাকে গণধর্ষন ও দেশব্যাপী নারী-শিশু নির্যাতন ও শিশু বালাৎকার এর প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা উপরোক্ত মন্তব্য করেন। ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সভাপতি ছাত্রনেতা খ ম জামাল উদ্দীন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-ইসলামিক ফ্রন্ট বংলাদেশ এর যুগ্ন মহাসচিব আলহাজ্ব এস এম সিরাজ উদ্দীন তৈয়বী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় সদস্য অধ্যক্ষ এম ইব্রাহীম আখতারী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-বাংলাদেশ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত চট্টগ্রাম মহানগর সহ সভাপতি খান এ সবুর। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর চট্টগ্রাম মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব এ এম মঈনউদ্দীন চৌধুরী হালিম। ফ্রন্ট নেতা এডভোকেট মীর ফেরদৌস আলম সেলিম, মোজাম্মেল হোসাইন, মাসুদ মেম্বার, রফিকুল ইসলাম, জনাব ওসমান, গিয়াস উদ্দিন হিরু, মাসুদ করিম, মোহাম্মদ জাহেদ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ছাত্রনেতা এস এম আবু ছাদেক ছিটু। মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- কাজী মোহামদ আহসানুল আলম, আলহাজ্ব আহমদ রেজা, চবি সভাপতি এমদাদুল ইসলাম, সেনা নেতা ফরিদুল হক, মিজবাহুল ইসলাম, নাছির উদ্দিন চৌধুরী, আনওয়ার হোসেন রানা, আলমগীর মাসুদ, নুরুল আলম মাইজভান্ডারী, আবু তৈয়ব, নাছির উদ্দিন, জমির উদ্দিন সানি, হাসান ইমাম প্রমুখ। পরিশেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে কাজির দেউরি মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

Comments

comments

Related Post