খবরের বিস্তারিত...

সালাফী মতবাদ নিষিদ্ধ করা সময়ের দাবী —আল্লামা খাজা আরিফুর রহমান তাহেরী

সালাফী মতবাদ নিষিদ্ধ করা সময়ের দাবী —আল্লামা খাজা আরিফুর রহমান তাহেরী

মার্চ 10, 2018 সাংগঠনিক খবর

গত ২৭ ফেব্রুয়ারী সিলেটের জৈন্তাপুরে জঙ্গিবাদী ওহাবী জনগোষ্ঠী কর্তৃক সুন্নী জনতার ঘরবাড়ীতে অগ্নিসংযোগ,তান্ডবলীলা এবং ১লা মার্চ বৃহস্পতিবার হবিগঞ্জ চুনারুঘাট উপজেলা আহ্লে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত-এর সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হোসেন আকল মিয়াকে নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ ও ইসলামী ছাত্রসেনা ঢাকা মহানগর।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর সভাপতি আল্লামা খাজা আরিফুর রহমান তাহেরী, তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক ব্যধি। সিরিয়া,ইরাক,আফগানিস্তান সহ সারা বিশ্ব জঙ্গিবাদে আক্রান্ত। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশেও জঙ্গিদের কার্যক্রম চোখে পড়ার মতো। অথচ এইদেশ আউলিয়া কিরামের দেশ,সুফি মতাদর্শের দেশ। যেখানে কখনোই জঙ্গিবাদের অস্তিত্ব ছিলনা। কিন্তু যখন থেকে ওহাবী,সালাফী মতাদর্শ বাংলার জমিনে ছড়িযে পড়তে লাগলো,তখনই জেএমবি,আনসারুল্লাহ্ বাংলা টিম,হুজি সহ বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের উপদ্রব বেড়ে গেলো, সবাই দেখলো সিরিজ বোমা হামলা,২১ শে আগস্টে মুফতি হান্নান গং কর্তৃক গ্রেনেড হামলা,শহীদ হয়ে গেল বিশিষ্ট ইসলামী মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শাইখ নুরুল ইসলাম ফারুকী,এখনো এই হত্যাকান্ডের বিচার হয়নি,তারই ধারাবাহিকতায় শহীদ হয়ে গেলেন আবুল হোসেন আকল মিয়া, যিনি সর্বদা ওহাবী-সালাফী মতবাদের বিরুদ্ধে সদা জাগ্রত ছিলেন। বাংলার জমীন থেকে ওহাবী-সালাফী মতবাদ নিষিদ্ধ করা এখন সময়ের দাবী, এই আবেদন থাকবে সরকারের প্রতি এবং আকল মিয়ার হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি জানাচ্ছি।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় পরিষদের অর্থ-সম্পাদক এডভোকেট মুহাম্মদ শাহীদ রিজভী,তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, জৈন্তাপুরে সুন্নি জনগণ প্রিয়নবীর শান মান আলোচনা করছিল, যেটা জঙ্গিবাদী ওহাবীগোষ্ঠীদের সহ্য হয়নি। তাই তারা নিরীহ সুন্নী জনতার গৃহে অগ্নি সংযোগ করে,চালিয়েছে ধ্বংসলীলা,এমনকি গৃহপালিত পশুরাও তাদের হাত থেকে রেহাই পায়নি। ঠিক যেমন ২০১৩ সালের ৫ মে’র পুনরাবৃত্তি, যেদিন রাজধানী ঢাকার শাপলা চত্বরে ধ্বংসলীলা চালিয়েছিল। এরা সেই দল,যারা বাংলাদেশকে আফগানিস্তানে পরিণত করকে চেয়েছিল। এই ওহাবীগোষ্ঠীদের নিয়ন্ত্রণ করতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
প্রধান বক্তা ইসলামী ছাত্রসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি এম নাঈমউদ্দিন বলেন, যতদিন ওহাবী-সালাফী-মওদুদীদের কার্যক্রম চলবে,ততদিন এইদেশ থেকে কোনভাবেই জঙ্গিবাদ দমন সম্ভব নয়। সরকাররে আমরা জানাতে চাই, অনুগ্রহ করে উপরে দিয়ে গাছে পানি দিয়ে নিচে কুড়াল চালাবেন না। কওমী সনদ দিয়ে আজ এই ওহাবীরা রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসীন হচ্ছে, ফলশ্রুতিতে জঙ্গিবাদকে পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করা হচ্ছে। জঙ্গিবাদ নির্মূল করার জন্য এই কওমী সনদ বাতিলের দাবি জানাই এবং হিযবুত তাহ্রীর,আনসারুল্লাহ্ বাংলা টিমসহ সকল জঙ্গিগোষ্ঠির উৎস সালাফী-আহলে হাদীসদের প্রকাশনা,প্রচারণায় সরকারের হস্তক্ষেপ একান্ত জরুরী।
ইসলামী ছাত্রসেনা ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি মুহাম্মদ শেখ ফরিদ মজুমদার এর সভাপতিত্বে এই মানববন্ধন বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী ছাত্রসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের সাবেক সভাপতি এম মনির হোসাইন,সহ-সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু সাইদ শাফিন,ছাত্রসেনা ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক সামিউল শুভ, ও অর্থ সম্পাদক এম এম কায়সার,সম্মিলিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার তালহা তালকিন আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক এস এম মোস্তফা কামাল,মুগদা থানা শাখার সভাপতি নুর হোসেন তুষার সহ আরও অনেকেই।

Comments

comments

Related Post